Dhaka Ideal College

EIIN - 131634

College Code - 1230

Message From Principal

Md. Sanaul Hoque Bhuiyan

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রাহমাতুল্লাহি ওয়াবারাকাতুহ।

সমস্ত প্রশংসা মহান আল্লাহ্ রাব্বুল আলামীনের-যিনি মানুষকে সৃষ্টির সেরা করে সৃষ্টি করেছেন। আমি কৃতজ্ঞ চিত্তে সাক্ষ্য দিচ্ছি সেই মহান আল্লাহ্ ছাড়া আর কোন মাবুদ নেই। তিনি একক এবং তাঁর কোন শরীক নেই, আমি আরও সাক্ষ্য দিচ্ছি যে, মানবতার মুক্তির দূত মহানবি হযরত মুহাম্মদ (স.) আল্লাহর বান্দা ও রসূল। তাঁর প্রতি অসংখ্য দরুদ ও সালাম।

মেধা, মনন ও প্রজ্ঞার কারণে মানুষ সৃষ্টির শ্রেষ্ঠ জীব। মানুষের এ গুণগুলো আরও উদ্ভাসিত ও শাণিত হয় শিক্ষার মাধ্যমে। কিন্তু শর্ত হলো শিক্ষা হতে হবে নৈতিক ও মূল্যবোধ সমৃদ্ধ শিক্ষা। কেননা নৈতিক ও মূল্যবোধ সমৃদ্ধ শিক্ষাই পারে মানুষকে শ্রেষ্ঠ হিসেবে প্রতিষ্ঠিত করতে। আলো ছাড়া যেমন অন্ধকার অপসারণের প্রয়াস অকল্পনীয়, তেমনি শিক্ষা ছাড়া অশিক্ষা, কুসংস্কার ও অজ্ঞতার অন্ধকার অপসারণও অকল্পনীয়। দিন দিন আমাদের দেশে তথাকথিত শিক্ষিত লোকের সংখ্যা বাড়ছে, কিন্তু সুশিক্ষিত, আদর্শ, সৎ ও নৈতিক মূল্যবোধ সম্পন্ন মানুষের সংখ্যা বাড়ছে না। এ জন্য নৈতিক ও মুল্যবোধ সমৃদ্ধ শিক্ষার আলোকে পরিবার, সমাজ, জাতি ও দেশকে আলোকিত করা একান্ত অপরিহার্য।এ অপরিহার্য কাজটি সুসম্পন্ন করা একমাত্র আধুনিক ও আদর্শ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলার মাধ্যমেই সম্ভব।তাই আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থার আর্দশিক দৈন্য নৈতিক দুর্বলতা ও অনৈক্যের মতো বিষয় সমূহ মাথায় রেখেই এ ধরিত্রী আলোকিত করার সুদূর প্রসারী আকাঙ্ক্ষা ও সুদৃঢ় প্রত্যয় নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে ঢাকা আইডিয়াল কলেজ। মানব সম্পদ উন্নয়ন, দারিদ্র্য বিমোচন, জীবনযাত্রার মান উন্নয়ন ও মনুষ্যত্ব বিকাশে শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম।কিন্তু আমরা যারা শিক্ষিত তারা অনেকেই ভুলে যাই যে, আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে জ্ঞানের আলোকে প্রদীপ্ত করা আমাদেরই দায়িত্ব।তাছাড়া কোন মানুষের শিক্ষা যখন অপরাপর মানুষের মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয়া হয়, তখনই সেই শিক্ষা সার্থকতা লাভ করে।ঢাকা আইডিয়াল কলেজ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে আমার এ প্রতীতি ও দায়িত্ববোধেই আমাকে বেশি অনুপ্রাণিত করেছে।ছাত্রদের আসল কাজ অধ্যায়ন।কিন্তু বর্তমান সময়ে অধ্যায়নের পরিবর্তে ছাত্র সমাজ ভিন্ন স্রোতধারার গড্ডলিকা প্রবাহে গা ভাসিয়ে জীবনের মূল্যবান সময় নষ্ট করছে।ফলে তাদের অসম্পন্ন ও ত্রুটিপূর্ণ শিক্ষার দ্বারা জাতি উপকৃত হতে পারছে না।এজন্য প্রয়োজন প্রচলিত শিক্ষা ব্যবস্থা ও শিক্ষাঙ্গনের পরিবেশের আশু পরিবর্তন। তাই শিক্ষা ব্যবস্থাকে শিক্ষার্থীর উপযোগী, আধুনিক ও জীবনমুখী হিসেবে সম্প্রসারিত ও উন্নীতকরণের লক্ষ্যে ঢাকা আইডিয়াল কলেজ বদ্ধপরিকর।শিক্ষার্থীরা যাতে তাদের মূল্যবান সময়কে কাজে লাগি ‘ছাত্র নং অধ্যয়ন তপঃ’ কথাটা ছাত্র জীবনে বাস্তবায়ন করে নিজেকে আদর্শ মানুষ হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে পারে, সেজন্য আমরা নিরলস প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি।ছাত্রদের সাফল্যের স্বর্ণশিখরে আরোহণের উপযোগী করতে ঢাকা আইডিয়াল কলেজ-এ একদল মেধাবী, পরিশ্রমী, প্রাণোচ্ছল ও চৌকস শিক্ষক দ্বারা পাঠদানের সুব্যবস্থা করা হয়েছে। দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে আগত ও ইচ্ছুক শিক্ষার্থীদের হোস্টেলে রেখে শিক্ষকগণের সার্বক্ষণিক নিবিড় তত্ত্বাবধানে পড়ালেখার সুব্যবস্থা করা হয়েছে।

বিস্ময়কর হলেও সত্যি যে. আমাদের ঐকান্তিক ব্যবস্থাপনার ফলে এ কলেজের প্রথম ব্যাচের ছাত্রই সরকারি মেডিকেল কলেজে ভর্তির সুযোগসহ অন্যান্য ছাত্র-ছাত্রীরা পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির সুযোগ পেয়েছে।সাফল্যের এ পাল্লা প্রতি বছরই অধিকতর ভারী হচ্ছে।

মহান আল্লাহ্ তা’আলার উপর পূর্ণ আস্থা রেখে বলতে পারি যে, ঢাকা শিক্ষা বোর্ড কর্তৃক স্বীকৃতিপ্রাপ্ত এ প্রতিষ্ঠানটি শুধু ঢাকায় নয়, এ দেশের শিক্ষা ক্ষেত্রে হবে একটি আদর্শ মাইলফলক। আর প্রত্যাশা পূরণে আমাদের নিরলস সততা ও নিষ্ঠা দিয়ে অব্যাহত রাখতে আমরা দৃঢ় পরম করুণাময় আল্লাহ্ তা’য়ালা আমাদের সহায় হোন। আ-মীন।

মানুষ জন্ম থেকে মৃত্যু পর্যন্ত শেখে। এ শিক্ষা কখনো আত্ম উপলব্ধিজাত, কখনো পর্যবেক্ষণগত অভিজ্ঞতা ও কখনোবা প্রাতিষ্ঠানিক। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষাই মানুষের জীবনে ব্যাপক প্রভাব বিস্তার করে। প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষায় মূলত প্রাথমিক, মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা প্রদান করার রীতি প্রচলিত। ন্যাশনাল আইডিয়াল কলেজ এ প্রচলিত রীতিতে মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষার্থীদের শিক্ষা প্রদান করে থাকে।